একটি স্বপ্ন দেখা স্বপ্ন বাস্তবায়নে অভিরাম ছুটে চলা।

সিলেট প্রতিনিধি এম রাসেল আহমেদ।

একটি স্বপ্ন দেখা।
স্বপ্ন বাস্তবায়নে অভিরাম ছুটে চলা।

২০১৭ সালে অনলাইনে সৃষ্টি হয় পথ চলা, এই পথ চলা একটি নতুন গল্পের শুভসূচনার,
এই গল্প “শ্রীমঙ্গল অনলাইন রক্তদান সংগঠন ” নামক একটি স্বপ্নকে সত্যিতে রুপান্তরিত করার।

ইমরান হোসেন একাই করেছেন একটি ঐক্যবদ্ধ
সংগঠন।
যার সদস্য আছে শুধু শ্রীমঙ্গল উপজেলায়।

এই পথচলায় আমি একাই দাড়িয়েছি রাস্তা-ঘাটে,যাকে যেখানে পায়েছি সেখানেই রক্তদানের
সচেতনতার বার্তা দিয়েছি।

শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রায় ৫০০+ ব্যাগ রক্ত দান করিয়েছি।

মানবতার প্রেমিকরা প্রকৃত স্বেচ্ছাসেবক।

আমার পাশে দাঁড়ায় আরো উৎসাহিত করেন অনলাইন থেকে অফলাইনে কাজ শুরু হয়।

সেদিন থেকেই শ্রীমঙ্গল উপজেলায় প্রথম বারের মতো।

“রক্ত দিন জীবন বাঁচান ”
স্লোগানে মুখরিত হয়েছে।

ইনশাআল্লাহ আমরা এখন পর্যন্ত শতভাগ রক্ত যোগানে চাহিদা পূরন করে যাচ্ছি।

ইউনিয়ন, স্কুল,কলেজে,ভিত্তিক, বিভিন্ন এলাকার চৌমুহনীতে রক্তদানের সচেতনতার বার্তা পৌঁছানো সহ,ব্লাড গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পিং করা হয়।

পরিক্ষার্থীদের অর্থ সহযোগীতা দিয়ে শিক্ষাজীবন করেছি ত্বরান্বিত।

বিজয় দিবসের প্রথম প্রহরে শহীদ স্বরণে দিয়েছি শ্রদ্ধাঞ্জলী।

এছাড়াও সাংগঠনিক কয়েকটি মিটিং করেছি যা অকল্পনীয় ও আমার চাহিদার থেকেও অনেক বেশী।

আমরা দিনের আলোতে চাকচিক্যময় অনুষ্ঠান না করে রাতের অন্ধকারে বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে অসহায়,বৃদ্ধ শীতার্তদের হাতে শীতবস্ত্র পৌছে দিয়েছি,।

তারপর গিয়েছি শ্রীমঙ্গল রেলওয়ে ষ্টেশন এলাকায়
জীবন যেখানে যেমন এই মর্মে বিশ্বাসী হয়ে কিছু মানুষকে খুজে নিয়েছি যাদের মা/বাবা নেই, বৃদ্ধ হয়েও রিক্সা চালায়, বিধবা, বুদ্ধি প্রতিবন্ধী, রাস্তায় পরে থাকা মানুষিক রুগী. উনাদের হাতে শীত বস্ত্র ও খাবারের সহযোগীতা পৌছে দিতে পেরে আমি পেয়েছি আনন্দ পেয়েছি উনাদের ভালোবাসা।

কাজ করেছি যা ছিলো সময়োপযোগী।
সংগঠনের চাঙ্গা ভাব ধরে রাখতে অনলাইনে বিভিন্ন প্রতিযোগিতা দিয়ে বিজয়ীর পুরষ্কারের অ র্থে অসহায় পরিবারকে খাদ্য কিনে দিয়েছি।

আমরা ঘরে ছিলাম কিন্তু আমাদের সেবা বন্ধ রাখিনি।
আমরা সেবা দিয়েই জয় করতে চাই মানুষের মন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Shares